চাঁপাইনবাবগঞ্জ | মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ info@mohanonda24.com +৮৮ ০১৬৮২ ৫৬ ১০ ২৮, +৮৮ ০১৬১১ ০২ ৯৯ ৩৩
অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তলন করে ও কোরান শরিফ তেলোয়াত করে অতিথি বৃন্দদের বরন করেনেন অত্র স্কুলের শিক্ষার্থীরা।

গার্লস স্কুলে বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

হ.আ/রিপোর্টার | প্রকাশিত: ৪ মার্চ ২০২৩ ০১:৪৪

হ.আ/রিপোর্টার
প্রকাশিত: ৪ মার্চ ২০২৩ ০১:৪৪

গার্লস স্কুলে বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

নবাবগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জনাব এ কে এম গালিভ খাঁন, জেলা প্রশাসক চাঁপাইনবাবগঞ্জ। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জনাব মাহফুজা সুলতানা, সভাপতি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ লেডিস ক্লাব। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জনাব পাপিয়া সুলতানা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, শিক্ষা ও আইসিটি। জনাব মোহাঃআবদুর রশীদ, জেলা শিক্ষা অফিসার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ। জনাব ড. মোঃ রুহুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক, হরিমোহন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়। অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জনাব এ.  কে. এম ফজলুর রহমান, প্রধান শিক্ষক, (ভারপ্রাপ্ত) নবাবগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।  এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন অভিভাবকবৃন্দ ও অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও কর্মচারী বৃন্দ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তলন করে ও কোরান শরিফ তেলোয়াত করে অতিথি বৃন্দদের বরন করেনেন অত্র স্কুলের শিক্ষার্থীরা।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অত্র বিদ্যালয়ের (ভারপ্রাপ্ত) প্রধান শিক্ষক, এ.কে.এম ফজলুল রহমান, তিনি বলেন, আমাদের এই বিদ্যালয়টি অনেক উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার মান অনেক উন্নতি হচ্ছে, এই বিদ্যালয়ের নাম বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে।  তিনি বলেন আমাদের একটি দশ তলা ভবন দ্রুত নির্মাণ করা দরকার আমাদের পাঠদানের জন্য যথেষ্ট পরিমাণে ক্লাসরুম নেই। আমাদের ক্লসরুম খুবই সিমিত। তিনি জেলা প্রশাসকের কাছে দ্রুত ভবনটি নির্মাণের জন্য  আবেদন জানিয়েছেন। তিনি বলেন   বৃত্তি পরীক্ষায় পঞ্চম শ্রেণিতে ৩০ জনের মধ্যে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে ২৬ জন সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে ০২ জন।  আরও মূল্যবান বক্তব্য দিয়ে তিনি তাঁর বক্তব্য শেষ করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি এ কে এম গালিভ খাঁন বলেন, এই বিদ্যালয়ের যে ভবনটির কথা আমাদের প্রধান শিক্ষক বললেন সেটির বিষয়ে অবশ্যই আমি দেখব এবং অতি দ্রুত ভবনটির নির্মাণের জন্য চেষ্টা করব। তিনি আরও বলেন এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি মাস জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান  ১৯৬০ সালের ১ মার্চ আলফা ইনসুরেন্স কম্পানি লিমিটেডে তিনি চাকরির সুবাদে যোগদান করে। এই কোম্পানিতেই তিনি বসে তার ছয় দফা দাবি তাঁর সহকর্মীদের নিয়ে সংকলন করেছিলেন। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে আরো গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে তার বক্তব্য শেষ করেন। 
সম্মানিত অতিথি জনাব মাহফুজা সুলতানা বলেন, নেপোলিয়ন বলেন তুমি আমাকে শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব। আমাদের সন্তানরা একদিন মা হবে তারা যদি সুশিক্ষায় শিক্ষা গ্রহন করে, তবে তারা একটি শিক্ষিত জাতি দেবে ও তবেই আমরা সনার বাংলা গড়ে তুলব যেটা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বপ্ন দেখেছিলেন।  বিশেষ অতিথি জনাব পাপিয়া সুলতানা বলেন, শিক্ষা মানুষের জীবনে এমন একটি অধ্যায় যেটি মানুষ আনুষ্ঠানিক অআনুষ্ঠানিকভাবে দুই ভাবেই অর্জন করে এবং নবাবগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়  অত্র জেলার অত্যন্ত সনামধন্য একটি বিদ্যালয়। তিনি আরও বলেন তোমরা স্কুল জীবনের শিক্ষাটাকে খুব ভালোভাবে গ্রহন কর এটি তোমাদের জীবনকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে। যেন একজন ভালো মনের মানুষ সৎ ও যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে পার।

অতিথি বৃন্দদের বক্তব্য শেষে প্রধান অতিথি, সম্মানিত অতিথি, ও বিশেষ অতিথিরা শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। পুরষ্কার বিতরণ শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের  আয়জনটি সমাপ্তি করেন। 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: