ঢাকা শনিবার, ২২শে জানুয়ারী ২০২২, ১০ই মাঘ ১৪২৮


রাজশাহীর স্টেশনে যাত্রীকে মারধরের ঘটনায় দোষী প্রমানিত হওয়ায় সেই টিটি বহিষ্কার


প্রকাশিত:
৬ জানুয়ারী ২০২২ ২২:০৫

আপডেট:
৬ জানুয়ারী ২০২২ ২২:০৬

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের টিটি মেহেদী হাসান রাসেল ও সহধর্মিনী রেহনাজ পারভীন তুতুল কর্তৃক যাত্রী কে মারধরের ঘটনায় রাজশাহী রেলওয়ে মহাব্যবস্থাপকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগি রুবেল। আজ বৃহস্পতিবার (৬জানুয়ারি) বেলা ১২টার দিকে রাজশাহী রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক এর হাতে লিখিত অভিযোগ দেন ভুক্তভোগি রুবেল।

এসময় উপস্থিত ছিলেন,চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সমিতি রাজশাহীর সহ-সভাপতি মোখলেসুর রহমান কচি,সহ-সভাপতি রসায়নবিদ রেজাউল করিম, যুগ্ন সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক এবিএম আখতারুল ইসলাম,সৈয়দ আলী রেজা,আবদুস সাত্তার,নাচোল যুবলীগের আব্দুল্লাহ আল মামুন সহ প্রমুখ।

অভিযোগে জানা যায়,রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের টিটির হাতে মারধরে শিকার হয়েছেন এক যাত্রী। ওই যাত্রী আনসার সদস্য। ওই আনসার সদস্যের নাম রুবেল (২৪)। রুবেল নাচোলের খেসবা গ্রামের মন্টুর ছেলে। এছাড়া তিনি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আনসার সদস্য হিসেবে কর্মরত আছেন।

রুবেল জানান, মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) ঢাকা থেকে রাজশাহীগামী ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে বেলা ১২ টা ১৫ মিনিটে পৌঁছায়। স্টেশনের প্লার্টফম থেকে বের হওয়ার সময় একজন নারী টিটি রেহনাজ পারভীন তুতুল তাকে টিকিট দেখাতে বলেন। এসময় রুবেল জানায়, আমার কাছে টিকিট আছে। তবে দুই হাতে চারটি ব্যাগের কারণে দেখাতে সমস্যা হচ্ছে। আমি টিকিট দেখাচ্ছি।

এসময় ওই নারী টিটি রেহনাজ পারভীন তুতুল সেখান থেকে চলে যান। পরে আসেন অন্য একজন (ছেলে) টিটি মেহেদী হাসান রাসেল। তিনি এসে টিটিক দেখানোর কথা বলেন। টিকিট বের করার পরে আমার নামের বানানে ‘ইএল’ আছে। আর রেলওয়ের অনলাইন রেজিস্টেশনের সময় ভুল বসত নামের বানানে ‘এএল’ আছে। এনিয়ে আমাকে ধাক্কা দেয় টিটি। এর পরে এক রুমে নিয়ে গিয়ে মারধর করে। এসময় ওই নারী টিটি বলেন, ‘আপনাকে বেশি মারা হয়নি তো’।

কথোপকথন এমন ছিল
মেহেদী হাসান রাসেল টিটি: এই আইডি কার, এই আইডি কার? রুবেল: আমার আইডি, টিটি: চিল্লাসিস ক্যান। এই চিল্লাসিস ক্যান। এমন কথায় একটি থাপ্পর মারে রুবেলকে টিটি। রুবেল: আমাকে মারলেন কেনো আপনি। আপনার উর্ধতন কর্মকর্তাকে ডাক দেন। আপনি আমাকে মারলেন কেনো? অপর এক ব্যক্তিতে বলে উনি আমাকে মারলেন।

রুবেল: আমার আইডি কার্ড সবই ঠিক আছে। আপনারা গায়ে হাত তুললেন কেনো বলেন। টিটি: তুই অতো চিল্লালি কিসের জন্য। এই চিল্লালি কেন। এসময় দুইটি বকসিন মারে টিটি রুবেলকে। বার বার বলতে থাকে টিটি তুই চিল্লালি কিসের জন্য। এসময় ওই টিটিকে অন্যরা মারধর করা থেকে আটকানোর চেষ্টা করে। রুবেল: আমার স্টাফ আছে এখানে। টিটি: তোর বাপ থ্যাক। তোর চাকরি করি আমি। (গালি)… তোর বাপ থাকে এখানে, (গালি)

চাঁপাইয়া কোথায় কার।তোর চাঁপাইয়ের কোন বাপ আছে ডাক।তুই তোর সভাবের জন্য মার খাইছিস।চাঁপাইনবাবগঞ্জ সম্পর্কে বাজে মন্তব্য করতে থাকে টিটি।

গতকাল বুধবার এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ভাইরাল হলে রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সহ দেশে এক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঐ দুই কর্মকর্তার শাস্তির দাবিতে সরগম হয়ে উঠে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক। বিশেষ করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সম্পর্কে বাজে মন্তব্য করায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষ ঐ কর্মকর্তার শাস্তির দাবিতে ইতিমধ্যে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: