ঢাকা সোমবার, ২৭শে জুন ২০২২, ১৪ই আষাঢ় ১৪২৯


ঢাকা-০৫ উপনির্বাচনকে ঘিরে বিএনপি-জামাতকে নিয়ে আ'লীগ নেত্রীর কার্যক্রম; জনমনে ক্ষোভ


প্রকাশিত:
১৩ জুন ২০২০ ২০:৫৬

আপডেট:
১৩ জুন ২০২০ ২১:২১

ফাইল ছবি

নিউজ ডেস্কঃ গত ৬ই মে ২০২০ তারিখে ঢাকা-০৫ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান মোল্লা ইন্তেকাল করেন। যার দরুণ গত ৯ই মে সংসদ সচিবালয় ঢাকা-০৫ আসনটি শূন্য ঘোষণা করে। প্রয়াত সাংসদ এর মৃত্যুর পরদিন থেকেই মাতুয়াইলের সুলতানা কামাল পরিবারের মুষ্টিমেয় কিছু লোক নেহরীন মোস্তফা দিশিকে ঢাকা-০৫ এর সংসদ সদস্য হিসেবে দেখতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণা চালায়, যেটা ডেমরা-যাত্রাবাড়ীর সাধারণ মানুষ খুব বিব্রত হয়।

জনসাধারণের অনেকেই বলেন ৪ বার নির্বাচিত জনপ্রিয় একজন সাংসদ মারা যাবার ১দিন পার না হতেই একটি পরিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেভাবে নির্বাচনী প্রচার করছে তা যেন, কারো মৃত্যু কারো উল্লাসে পরিণত হয়েছে। সেই ক্ষোভে যেন দিন দিন ঘি ঢেলে দিচ্ছে যেন খোদ শহীদ সুলতানা কামাল এর ভাতিজী নেহরীন মোস্তফা দিশি নিজেই। জানা গেছে, নেহরীন মোস্তফা দিশি প্রধানমন্ত্রীর আত্নীয় পরিচয়ে ঢাকা-০৫ এর আগামী উপ-নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুন করছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে বিএনপি-জামাতের নেতারা।

যাদের পরিবারের সন্তান মাদক ব্যবসায়ী, আলোচিত অপহরণ মামলার আসামি। যারা দিশির আশ্রয়ে আশ্রিত। মাতুয়াইল এলাকার কুখ্যাত ডাকাত ছিলেন আবদুল মান্নান সাদু।তার পুত্র আবেদ বিএনপি আমলে মাতুয়াইল ইউনিয়ন যুবদল ও বিএনপি নেতা ছিলেন, তিনি এখন দিশীর পোস্টারে শিরোনাম। ভুইঘর এলাকার আলোচিত মাদক ব্যবসায়ী ও সাবেক বিএনপি নেতা দেলোয়ারের ছবি দিয়ে দিশীর পোস্টারে সয়লাভ মাতুয়াইল দক্ষিণপাড়া এলাকা। উল্লেখ্য, দেলোয়ার কিছুদিন আগে ২৩০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট সহ পুলিশের কাছে গ্রেফতার হয়।

যা কয়েকটি অনলাইনে ভাইরাল নিউজের প্রাধান্য পায়। দেলোয়ারের বিএনপি সময়ের মিছিলের ছবি ও ইয়াবাসহ গ্রেফতারের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল। যাত্রাবাড়ী থানা শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক ও মাতুয়াইল ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শিপন খানের একমাত্র পুত্র সাইফুল ইসলাম খানও দিশির পোস্টারে সয়লাভ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। অপরদিকে শনির আখড়া গোবিন্দপুরের রতন মেম্বারের পুরো পরিবার বিএনপি হলেও মাঝে সে আওয়ামী লীগের কিছু নেতাদের ম্যানেজ করে যাত্রাবাড়ী থানা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ বাগিয়ে নেয়।

কিন্তু এলাকাবাসী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগারদের মনে ক্ষোভ তার মত জাতীয়তাবাদ বিএনপি আদর্শের পরিবারের লোককে নিয়ে কিভাবে দিশি ব্যানার ফেস্টুন ও নির্বাচনী কার্যক্রম চালায়? মাতুয়াইল দক্ষিণ পাড়ার ইনছু বংশ বি.এন.পি-জামাত রাজনীতির সাথে জড়িত তা মাতুয়াইলের সকলেই জানে। ইনছু বংশের মহি,জসিম,জাহাঙ্গীর এরা বি.এন.পি রাজনীতির সাথে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত ছিলেন,অথচ এই জাহাঙ্গীর ও দিশির ব্যানার পোস্টার দিয়ে মাতুয়াইলএলাকায় ব্যাপক প্রচারণা চালাচ্ছেন। নেহরীন মোস্তফা দিশি মাতুয়াইলের মৃধা পরিবারের সন্তান, তারই পরিবারের আলোচিত সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ডও পরিবহন চাঁদাবাজ মুকুল মৃধা। সে ও দিশির সমর্থনে মাঠে কাজ করতে দেখা যাচ্ছে।

দনিয়া এলাকার সাবেক যুবদল নেতা ,সবাই যাকে ডিশ সেন্টু নামে চেনে তিনিও দিশীর সমর্থনে রাজনৈতিক কর্মকান্ড করছেন যা স্থানীয় আওয়ামী লীগ ভাল চোখে দেখছেনা। স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেন, নেহরীন মোস্তফা দিশিকে আমরা এক বছর আগেও চিনতাম না, তিনি সুলতানা কামালের ভাতিজী বলে শুনেছি কিন্তু রাজনীতি করতে মাঠে নেমেই তিনি লোক পাবেন না এটাই বাস্তব। তাই বলে বিএনপি-জামাত। তাদের পরিবারের সদস্য, স্থানীয় সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ীদের দিয়ে তিনি ব্যানার পোস্টার ও রাজনৈতিক কর্মকান্ড পরিচালনা করবেন তা মেনে নেয়া যায়না।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: